অ্যানালগ এবং ডিজিটাল নিয়ে সহজ ভাষায় বিস্তারিত | Analog And Degital In bangla

0
1585
অ্যানালগ এবং ডিজিটাল

অ্যানালগ এবং ডিজিটাল নিয়ে সহজ ভাষায় বিস্তারিত | Analog And Degital In bangla

অ্যানালগ এবং ডিজিটাল নিয়ে আমাদের আজকের লিখা । আমরা যারা ইলেক্ট্রিক্যাল অথবা ইলেক্ট্রনিক্স এর সাথে কোন না কোন ভাবে জরিত তারা অবশ্যই অ্যানালগ এবং ডিজিটাল কথাটার সাথে পরিচিত । এখানে এই কথাগুলো মাথায় আসলেই আমরা ভাবি হয়তো কোন সিগনালের কথা বলা হচ্ছে অথবা কোন মিটারের কথা বলা হচ্ছে ।

আজ আমরা অ্যানালগ এবং ডিজিটাল নিয়ে আপনাদের থেকে পাওয়া প্রায় সকল প্রশ্নের উত্তর তুলে ধরার চেস্টা করেছি । আমাদের আজকের প্রশ্নগুলো নিচে দেয়া হল ।

অ্যানালগ এবং ডিজিটাল

অ্যানালগ এবং ডিজিটাল নিয়ে আজকের প্রশ্নসমূহঃ

১। অ্যানালগ মিটার কাকে বলে ?

২। ডিজিটাল মিটার কাকে বলে ?

৩। অ্যানালগ  ও ডিজিটাল মিটারের মধ্যে পার্থক্য কি ?

৪। অ্যানালগ  সিগন্যাল ও ডিজিটাল সিগন্যাল  এর মধ্যে পার্থক্য কি কি ?

এখন আমরা উপরের প্রশ্নগুলোর উত্তর জানবো এবং বোঝার চেস্টা করবো ।

অ্যানালগ মিটার কাকে বলে ?

যে সকল মিটার দাগযুক্ত স্কেলের  উপর কাঁটা বা পয়েন্টার এর ডিফ্লেকশন  দ্বারা বৈদ্যুতিক রাশির পরিমাণ নির্দেশনা করে থাকে, সে সকল মিটারকে বলা হয় অ্যানালগ মিটার।

চাকুরির পড়া পড়তে হলে এখানে ক্লিক করুন

ডিজিটাল মিটার কাকে বলে ?

যে সকল মিটার সরাসরি ডিজিট বা গাণিতিক সংখ্যার মাধ্যমে বৈদ্যুতিক রাশির পরিমাণ নির্দেশনা করে থাকে, সে সকল মিটারকে বলা হয় ডিজিটাল মিটার।

অ্যানালগ  ও ডিজিটাল মিটারের মধ্যে পার্থক্য কি ?

নাম দেখেই আমরা বুঝতে পারছি এগুলোর মাঝে পার্থক্য অনেক বেশি । চলুন আমরা সেগুলো জেনেনেই এবার ।

অ্যানালগ এবং ডিজিটাল

অ্যানালগ মিটারঃ

  • এই মিটার ইলেক্ট্রনিক্স ও কনভেনশনাল এই দুই রকম হয়।
  • অ্যানালগ মিটারের অপারেশন গালভালোমিটারের মুভিং কয়েলের উপর নির্ভর করে থাকে।
  • দাগযুক্ত স্কেলের কাঁটা বা পয়েন্টার এর বিক্ষেপ বা মুভমেন্ট এর মাধ্যমে ইলেক্ট্রিক্যাল রাশির পরিমাণ নিদিষ্ট করে।
  • এই মিটারে বিভিন্ন রেঞ্জ থাকে যা ব্যবহারকারিদের সেট করে নিতে হয়।
  • এই মিটারের পরিমাপের অ্যাকুরেসি কম হয়ে থাকে।
  • এই মিটার সাধারণত বেশি ব্যবহার করা হয়।
  • এই মিটারের দাম তুলনামুলকভাবে কম।

অ্যানালগ এবং ডিজিটাল

ডিজিটাল মিটারঃ

  • এই মিটার বলতে কেবলমাত্র ইলেক্ট্রনিক মিটারকেই বুঝায়।
  • ডিজিটাল মিটারের মূলবিষয় বা অপারেশন ইলেক্ট্রনিক্স সার্কিট ও কনভর্টারের উপর নির্ভরশীল।
  • এই মিটারে কোন পয়েন্টার ও স্কেল নেই।
  • এই মিটার সরাসরি গাণিতিক সংখ্যায় ইলেক্ট্রিক্যাল রাশির পরিমাণ ডিসপ্লে করে থাকে।
  • ডিজিটাল মিটার অটোরেঞ্জ সিস্টেম।
  • এই মিটারে অ্যাকুরেসি অনেক বেশি পাওয়া যায়।
  • এই মিটার সাধারণত কম ব্যবহার করা হয়।
  • এই মিটারের দাম অনেক বেশি।

চাকুরির পড়া পড়তে হলে এখানে ক্লিক করুন

অ্যানালগ  সিগন্যাল  ও ডিজিটাল সিগন্যাল  এর মধ্যে পার্থক্য কি কি ?

অ্যানালগ  সিগন্যাল  ও ডিজিটাল সিগন্যাল  এর মাঝে বেশ কিছু পার্থক্য রয়েছে । আমরা নিচের পার্থক্যগুলো পরলেই খুব সহজে বুঝতে পারবো । প্রথমেই অ্যানালগ  সিগন্যাল  সম্পর্কে বলা হলো ।

অ্যানালগ এবং ডিজিটাল

অ্যানালগ  সিগন্যালঃ

এই সিগনাল একটি নিরবিচ্ছিন্ন প্রক্রিয়া নির্দেশ করে থাকে।

  • অ্যানালগ সিগনাল এর কারেন্ট বা ভল্টেজ মান সবসময় পরিবর্তন হয়।
  • এই সিগনাল এর কোন স্থির অবস্থা নেই।
  • অ্যানালগ সিগনাল মেশিনে বা অ্যানালগ প্রক্রিয়ায় এ সিগনাল ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

অ্যানালগ এবং ডিজিটাল

ডিজিটাল সিগন্যালঃ

  • এই সিগনাল একটি বিছিন্ন বিহীন প্রক্রিয়াকে নির্দেশ করে থাকে।
  • ডিজিটাল সিগনাল কারেন্ট বা ভল্টেজ মান একটি নিদিষ্ট সময় এর মাঝে মাঝে পরিবর্তন হয়।
  • এই সিগনাল এর দুইটি স্থির অবস্থা আছে।এই দুইটি অবস্থা যখন দরকার হয় তখন পরিবর্তন করা হয়।
  • ডিজিটাল মেশিনে বা ডিজিটাল প্রক্রিয়ায় এ সিগনাল ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

যদি আপনাদের অ্যানালগ এবং ডিজিটাল নিয়ে নিয়ে আরো কোন প্রশ্ন থাকে তাহলে আমাদের কমেন্ট বক্সে জানাবেন । EEEcareer আপনাদের সকল প্রশ্নের যত দ্রুত সম্ভব উত্তর দেয়ার চেস্টা করবে । আমাদের আজকের আয়োজন এখানেই শেষ করছি । আমাদের লিখা ভালো লাগলে অবশ্যই জানাবেন আশা করছি, আপনাদের ভালোলাগা আমাদের অনুপ্রেরণা যোগায় । ভালো থাকুন এবং সুস্থ থাকুন সবাই ।

LEAVE A REPLY