জেনারেটর, টারবাইন, বয়লার এবং কনডেন্সার নিয়ে জানুন | EEEcareer Viva

0
2308
জেনারেটর

জেনারেটর, টারবাইন, বয়লার এবং কনডেন্সার নিয়ে জানুন

আজ আমরা  জেনারেটর, টারবাইন, বয়লার এবং কনডেন্সার কাকে বলে সেটা জানবো । যারা ইলেক্ট্রিক্যাল কাজ করেন অথবা কোন ফ্যাক্টরিতে কর্মরত আছেন অথবা যারা চাকুরির ভাইভাতে অংশগ্রহণ করতে চলেছেন তাদের জন্য আজকের লিখাটি খুব গুরুত্বপূর্ণ । কারন ভাইভাতে এই প্রশ্নোগুলোর সংক্ষেপে উত্তর চাওয়া হয়। তাই চলুন জেনে নিন একদম সহজ ভাষায় সংজ্ঞাগুলো।

যে প্রশ্নোগুলোর উত্তর জানবো আজ সেগুলো হলঃ

১। জেনারেটর কি বা কাকে বলে?

২। টারবাইন কি বা কাকে বলা হয়?

৩। বয়লার কি বা কাকে বলে?

৪। কনডেন্সার কি অথবা কাকে বলে?

এবার তাহলে চলুন উপরের প্রশ্নোগুলোর উত্তর জেনে নেই এবার।

জেনারেটর নিয়ে বিস্তারিত জানতে হলে এখানে ক্লিক করুন

জেনারেটর

জেনারেটর কি বা কাকে বলে?

এটি এমন একটা  মেশিন বা যন্ত্র যার সাহায্যে যান্ত্রিক শক্তি কাজে লাগিয়ে বিদ্যুৎ শক্তি উৎপন্ন করা হয়ে থাকে । এই বিদ্যুৎ শক্তি উৎপন্ন করার জন্য একটি চুম্বক ক্ষেত্র এবং একটি আর্মেচার যেটার উপড়ের ভাগে তারের কয়েল প্যাচনো থাকে এবং জেটাকে যান্ত্রিক শক্তির মাধ্যমে চুম্বক ক্ষেত্রে ঘুরানো হয় । এখানে যে যন্ত্রে মাধ্যমে একে ঘুরানো হয়ে থাকে তাকে  বলা হয় প্রাইম মুভার । প্রাইম মুভার হিসেবে এখানে স্টিম , ডিজেল , পেট্রোল এমন কি বিদ্যুতিক মোটর ব্যবহার করা যেতে পারে ।

জেনারেটর

টারবাইন কি বা কাকে বলা হয়?

এটি এমন একটা মেশিন বা প্রাইম মুভার  যাতে প্রবাহীর ক্রমাগত ভরবেগের পরিবর্তন দিয়ে ঘূর্ণন গতি পাওয়া যায় । নানা প্রকার  টারবাইন পাওয়া যায়  যেমনঃ গ্যাস টারবাইন, স্টিম টারবাইন , ওয়াটার টারবাইন  ইত্যাদি । এগুলোর মাঝে আশুগঞ্জ পাওয়ার স্টেশনে ৬ ইউনিট এ স্টিম টারবাইন এবং বাকী ২ টিতে গ্যাস টারবাইন ব্যবহার করা হয়ে থাকে । এখানে স্টিম টারবাইন একটা আদর্শ প্রাইম মুভার এবং এর বহুবিধি ব্যবহার ও দেখা যায় আমাদের দেশে । এগুলোর মাঝে বড় বড় স্টিম টারবাইন গুলো পাওয়ার প্লান্টে বিভিন্ন জেনারেটর পরিচালনার জন্য ব্যবহার করা হয়ে থাকে এবং ছোট ছোট টারবাইন গুলো দিয়ে পাম্প , ফ্যান চালানো যেতে পারে । এখানে  স্টিম টারবাইন ০.৫ হতে ২০০০০০HP বা হর্স পাওয়ার পর্যন্ত হয়ে থাকে ।

জেনারেটর

 বয়লার কি বা কাকে বলে?

সকল নিরাপত্তার ব্যবস্থা  মাথায় রেখে  যে আবদ্ধ পাত্রের ভেতর পানি রেখে তাতে তাপ প্রয়োগের মাধ্যমে স্টিম উৎপাদন করা হয় তাকে বলা হয়  বয়লার । এটি সাধারনত দুই ধরনের হয়ে থাকে  যথা (১)ওয়াটার টিউব বয়লার  (২)ফায়ার টিউব বয়লার  । এখানে ফায়ার টিউব বয়লারের গঠন প্রানালী জটিল এবং অনেক ব্যয়বহুল হয়  । আবার খুব কম গতিতে স্টিম উৎপাদন  ছাড়া এটা বিস্ফরন হলে ক্ষয়ক্ষতির পরিমান  অনেক বেশি হবার সম্ভাবনা থাকে  তাই বাংলাদেশে ওয়াটার টিউব বয়লার বেশি ব্যবহার করা হয়ে থাকে । এই ওয়াটার টিউব বয়লারের আগুন বাহিরে থাকে এবং পানি টিউব এর ভিতর থাকে । ফায়ার টিউব বয়লারের আগুন টিউব এর ভিতর এবং পানি টিউব এর বাহিরে থাকে ।

জেনারেটর

কনডেন্সার কি অথবা কাকে বলে?

যখন  স্টিম টারবাইন কে ঘুরিয়ে  বেড় হয় , তখন এই এগজস্ট স্টিমকে ঠান্ডা করার কাজে  ব্যবহার করা হয় কনডেন্সার ।কনডেন্সারের মাধ্যমে ঠান্ডা পানি স্টিম এর সংস্পর্শে ঘনীভূত করে পানিতে পরিনত করা হয়ে থাকে । এর মানে হচ্ছে  স্টিম কে পানি করে পুনরায় ফিড ওয়াটার হিসাবে বয়লারে সরবারহ করা হয়ে থাকে । আমরা এটাকে হীট একচেঞ্জার ও বলে থাকি । আমাদের দেশে দুই ধরনের কন্ডেন্সার বেশি দেখা যায়  ১) সারফেস কনডেন্সার ২)জেট কনডেন্সার  । এই দুটোর মাঝে আবার সারফেস কনডেন্সার বেশি জনপ্রিয় । তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্র গুলোতে সারফেস কনডেন্সারের ব্যাবহার বেশি দেখা যায়।

জেনারেটর এবং ইউটিলিটি নিয়ে বিস্তারিত জানতে হলে এখানে ক্লিক করুন

আপনাদের জন্য জেনারেটর, টারবাইন, বয়লার এবং কনডেন্সার নিয়ে আজকের আলোচনা এখানেই শেষ করছি । আমাদের কমেন্ট বক্সে আপনারা আপনাদের প্রশ্নো থাকলে করতে পারেন এবং আমাদের লিখাগুলো নিয়ে মতামত জানাতে পারেন । সকলেই ভালো থাকুন EEEcareer এর সঙ্গেই থাকুন।

LEAVE A REPLY