স্যাটেলাইট এর গঠনপ্রণালী,আপলিঙ্ক,ডাউনলিঙ্ক,ব্যান্ডউইথ এবং গ্রাউন্ড স্টেশন | Satallite Bangla

0
1139
স্যাটেলাইট

স্যাটেলাইটের গঠনপ্রণালী,আপলিঙ্ক,ডাউনলিঙ্ক,ব্যান্ডউইথ এবং গ্রাউন্ড স্টেশন | Satallite Bangla

স্যাটেলাইট নিয়ে আজ আপনাদের সামনে ২য়-পর্ব নিয়ে হাজির হয়েছি । প্রথম পর্বে আপনারা স্যাটেলাইট নিয়ে প্রাথমিক ধারনা পেয়াছেন । আজ আপনাদের স্যাটেলাইটের গঠন, গ্রাউন্ড স্টেশন, আপলিঙ্ক, ডাউনলিঙ্ক এবং ব্যান্ডউইথ নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করবো । আজকের লিখাতে আপনারা খুব সহজ কিছু উদাহরনের দ্বারা স্যাটেলাইট সম্পর্কে পরিষ্কার কিছু ধারনা পাবেন আশা করছি ।

স্যাটেলাইট নিয়ে যে বিষয়গুলো জানবো আজঃ

১। স্যাটেলাইটের গঠনপ্রণালী ।

২। কি কি ডিভাইস নিয়ে স্যাটেলাইট গঠিত ?

৩। স্যাটেলাইটের গ্রাউন্ড স্টেশন তৈরি করার জন্য কি কি ডিভাইস দরকার ?

৪। ব্যান্ডউইথ কি ?

৫। স্যাটেলাইটের ব্যান্ডউইথ কত হয় ?

৬। স্যাটেলাইটের আপলিঙ্ক এবং ডাউনলিঙ্ক কাকে বলে ?

চলুন এবার উপড়ের পয়েন্টগুলোর বিস্তারিত জানবো,

স্যাটেলাইট নিয়ে প্রথম পর্ব পড়ার জন্য এখানে ক্লিক করুন

স্যাটেলাইটের গঠনপ্রণালী

সাধারনত স্যাটেলাইট বিভিন্ন গঠন বা আকৃতির হয়ে থাকে । তবে প্রত্যেকটা স্যাটেলাইটের দুইটা সাধারন পার্ট বা অংশ থাকে সেগুলো হলো এর শক্তির উৎস এবং এন্টিনা । এখানে ব্যাটারি বা সোলার প্যানেল অথবা উভয়েই স্যাটেলাইটের শক্তির উৎস হিসেবে কাজ করে । আর তথ্য গ্রহন এবং সেগুলোর সংগ্রহের কাজ করে হচ্ছে এন্টিনা ।

স্যাটেলাইট

কি কি ডিভাইস নিয়ে স্যাটেলাইট গঠিত?

ট্রান্সপন্ডার (Transponder) হচ্ছে কোন স্যাটেলাইটের মূল চালিকাশক্তি । এই ট্রান্সপন্ডার আবার নিম্নক্ত ডিভাইস এর সমন্বয়ে তৈরি করা হয় ।

  • ব্যান্ড পাস ফিল্টার( Band Pass Filter)
  • ফ্রিকুয়েন্সি ট্রান্সেলেটর( Frequncy Translator)
  • লো- নয়েজ আমপ্লিফায়ার( Low Noise Amplifier)
  • পাওয়ার আমপ্লিফায়ার( Power Amplifier)
  • মাইক্রোওয়েভ শিফট অসিলেটর( Microweve shift oscillator)
  • হাই রেজোলেটেড ক্যামেরা( High Resolute Camera)
  • হাই পাওয়ার ট্রান্সমিটিং এন্টিনা( High power Transmitting Antenna)
  • হাই পাওয়ার রিসিভিং এন্টিনা( High power receiving Antenna)
  • রেডিও ফ্রিকুয়েন্সি মিক্সার( Radio Frequency Mixer)
  • প্রোসেসর উইথ হাই ক্লক স্পিড( Processor with high clock speed)

উপরিক্ত ডিভাইস সমূহ নিয়ে স্যাটেলাইটের ট্রান্সপন্ডার (Transponder) অথবা স্যাটেলাইটের মূল চালিকাশক্তি তৈরি ।

স্যাটেলাইটের গ্রাউন্ড স্টেশন তৈরি করার জন্য কি কি ডিভাইস দরকার ?

আমরা জানি, গ্রাউন্ড স্টেশন হচ্ছে এমন একটি স্টেশন যেখানে থেকে মহাকাশে পাঠানো স্যাটেলাইটেকে নিয়ন্ত্রন করা হয় । গ্রাউন্ড স্টেশন পৃথিবীপৃষ্ঠে স্থাপন করা হয় এবং এই স্টেশন থেকেই স্যাটেলাইট পরিচালোনা করা হয়ে থাকে । এই স্টেশন তৈরি করতে হলে বেশ কিছু ডিভাইস প্রয়োজন পরে, সেগুলো হলোঃ

  •  ট্রান্সমিট চেইন( Transmit chain)
  • রিসিভ চেইন( Receive chain )
  • আর্থ বেস চ্যানেল সোর্স( Earth based channel source)
  • পাওয়ার জেনারেটর ফর এন্টিনা( power generator for antenna)
  • এন্টিনা কন্ট্রল মোডিউল( Antenna control module)
  • পারাবোলিক এন্টিনা(ট্রান্সমিট এবং রিসিভ) (Parabolic Antenna ( Transmitting & receiving))

স্যাটেলাইট

ব্যান্ডউইথ কি ?

আপনারা যারা ইন্টারনেট ব্যবহার করেন তারা প্রায়ই ব্যান্ডউইথ কথাটা শোনেন । ব্যান্ডউইথ নিয়ে আজকে আপনাদের বাস্তব উদাহরন দিয়ে বোঝানোর চেস্টা করবো । ধরুন আপনার সামনে দুইটা রাস্তা আছে, একটি রাস্তা বেশ প্রশস্ত আরেকটা রাস্তা একটু সরু । এখন প্রশস্ত রাস্তাটা দিয়ে দুইটা বাস খুব সহজেই যাতায়াত করতে পারে । কিন্তু সরু রাস্তাটা দিয়ে কেবল একটা বাস যাবার জায়গা আছে, অন্য কোন বাস আসলে বেশ সময় লাগে সাইড দিতে । ঠিক তেমনি ব্যান্ডউইথ ও একইভাবে কল্পনা করুন।  জেটার ব্যান্ডউইথ বেশি হবে সেটার ডাটা আদান প্রদানের জন্য যায়গা বেশি থাকে । এর মানে হচ্ছে ব্যান্ডউইথ যত ভালো, ডাটা আদান প্রদানের গতি অথবা ডাটা ট্রান্সমিশন ক্যাপাসিটি ততো বেশি । এই ব্যান্ডউইথকে ডাটা স্পিড ও বলা হয় ।

স্যাটেলাইট নিয়ে প্রথম পর্ব পড়ার জন্য এখানে ক্লিক করুন

স্যাটেলাইটের ব্যান্ডউইথ কত হয় ?

সাধারনত স্যাটেলাইটের ব্যান্ডউইথ ১৫-৩,৫০০ মেগা হার্জ হয়ে থাকে । এই ব্যান্ডউইথ এক এক দেশে এক এক রকম হয় । এটা নির্ভর করে নির্দিষ্ট দেশের প্রেরিত স্যাটেলাইটের উপরে । আমাদের যে স্যাটেলাইট রয়েছে এই স্যাটেলাইটের ব্যান্ডউইথ ১,৬০০ মেগা হার্জ

স্যাটেলাইটের আপলিঙ্ক এবং ডাউনলিঙ্ক কাকে বলে ?

আপলিঙ্কঃ কোন গ্রাউন্ড স্টেশনের এন্টেনা হতে কোন ডাটা চ্যানেল অথবা লিংক এর মাধ্যমে স্যাটেলাইটের রিসিভিং এন্টেনাতে পৌছানোর প্রক্রিয়াকে বলা হয় আপলিঙ্ক ।

স্যাটেলাইট

ডাউনলিঙ্কঃ আবার যখন স্যাটেলাইটের ট্রান্সমিটিং এন্টেনা হতে কোন ডাটা চ্যানেল অথবা লিংক এর মাধ্যমে গ্রাউন্ড স্টেশনের রিসিভিং এন্টেনাতে পৌছানোর প্রক্রিয়াকে বলা হয় ডাউনলিঙ্ক ।

আপনাদের কনফিউশন দূর করার জন্য একটা উদাহরন উপস্থাপন করছি । ধরুন আপনি একটি বল উপরের দিকে ছুরে মারলেন। এখানে আপনার বল ছোরা হল আপলিঙ্ক এবং যেখানে বলটার ভেলোসিটি শুন্য হয়ে আবার নিচের দিকে আসা শুরু করে তখন সেটা হল ডাউনলিঙ্ক । আশা করছি বুঝতে পেরেছে এবার ।

স্যাটেলাইট নিয়ে প্রথম পর্ব পড়ার জন্য এখানে ক্লিক করুন

স্যাটেলাইটের ২য়-পর্বের জন্য এই পর্যন্ত ছিলো আজকের আয়োজন । আমরা খুব শিগ্রয় নতুন পর্ব নিয়ে আপনাদের মাঝে হাজির হব । আমাদের লিখাগুলো ভালো লাগলে আমাদের কমেন্ট বক্সে জানাবেন আশা রাখছি । সকলে সুস্থ থাকুন এবং EEEcareer এর সাথেয় থাকুন ।

LEAVE A REPLY